কালাগলা মানিকজোড় | Black necked Stork | Ephippiorhychus asiaticus

2623
কালাগলা মানিকজোড় | ছবি: ইন্টারনেট

বিরল দর্শন পরিযায়ী পাখি। হালে দেখা যাওয়ার নজির নেই। বাংলাদেশে সর্বশেষ দেখা গেছে প্রায় ৬৭ বছর আগে। এদের বিচরণ হাওর-বাঁওড় জলাশয় এলাকায়। হাঁটুজলে নেমে শিকার খোঁজে। এরা দলবদ্ধ হয়ে বিচরণ করে না। সাধারণত এক জোড়ার বেশি কোথাও দেখা যায় না। তবে শিকারে বের হলে শামুকখোল পাখির সঙ্গে দল বাঁধতে দেখা যায়। খাবারে তেমন কোনো বাছবিচার নেই। পচাগলা থেকে শুরু করে সব ধরনের খাবার এদের প্রিয়। রাত যাপন করে গাছের সবচেয়ে উঁচু ডালে। দিনের বেলা জলাশয়ের পাড়ে হাঁটুগেড়ে বিশ্রাম নেয়।

বাংলাদেশ ছাড়াও বৈশ্বিক বিস্তৃতি ভারত, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, মিয়ানমার, থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া ও লাওস পর্যন্ত। এ ছাড়াও পাপুয়া নিউগিনি এবং অস্ট্রেলিয়ায় সামান্য নজরে পড়ে। পাখিবিশারদদের মতে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় বড়জোর এক হাজার ‘কালাগলা মানিকজোড়’ রয়েছে। সারা বিশ্বে এদের অবস্থান তত ভালো নয় বিধায় আইইউসিএন এদের লাল তালিকাভুক্ত করেছে।

পাখির বাংলা নামঃ ‘কালাগলা মানিকজোড়’, ইংরেজী নামঃ ‘ব্লাক নেকেড স্টর্ক’ (Black necked Stork) বৈজ্ঞানিক নামঃ Ephippiorhychus asiaticus। এরা ‘কালোগলা বক ও লোহারজঙ্গ’ নামেও পরিচিত।

প্রজাতির গড় দৈর্ঘ্য ১৫০ সেন্টিমিটার। স্ত্রী-পুরুষ পাখির চেহারায় সামন্য পার্থক্য রয়েছে। পাখিবিশারদ ব্যতীত এ পার্থক্য নিরুপণ করা বড়ই কঠিন। সূক্ষ্ম সেই পার্থক্যটা হচ্ছে স্ত্রী পাখির চোখের তারা হলুদ, পুরুষ পাখির চোখের তারা বাদামি-কালো। এ ছাড়া বাদবাকি একই রকম। বলা যায়, এরা সাদা-কালো রঙের পাখি। মাথা ও গলা কালো। পিঠের মাঝখান থেকে লেজের উপরিভাগ পর্যন্ত কালো। দেহের বাকি অংশ সাদা। ঠোঁট কালো। পা ও পায়ের পাতা উজ্জ্বল লাল। অপ্রাপ্ত বয়স্কদের রং ভিন্ন। ওদের মাথা থেকে পিঠের দিক বাদামি। ওড়ার পালক কালচে। পা গাঢ় লাল।

প্রধান খাবারঃ  ছোট সাপ, ব্যাঙ, ইঁদুর, বাইম মাছ। শিঙ-মাগুর মাছের প্রতিও আসক্তি রয়েছে। প্রজনন মৌসুম সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বর। অঞ্চলভেদে প্রজনন মৌসুমের হেরফের রয়েছে। বাসা বাঁধে জলাশয়ের কাছাকাছি গাছের উঁচু ডালের তেমাথায়। বাসা মাচা আকৃতির। বাসা বানাতে উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করে শুকনো সরু ডালপালা। ডিম পাড়ে তিন-চারটি। ফুটতে সময় লাগে ২৯-৩১ দিন।

লেখক: আলম শাইন। কথাসাহিত্যিক, কলাম লেখক, বন্যপ্রাণী বিশারদ ও পরিবেশবিদ।
সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন, 04/09/2021

মন্তব্য করুন:

Please enter your comment!
Please enter your name here

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.