Home / Tag Archives: ছাতারে

Tag Archives: ছাতারে

ছোট বুনো ছাতারে

ছবি: ইন্টারনেট। পাখির বাংলা নাম: ‘কালো থুঁতনি ছোট বুনো ছাতারে’। ইংরেজি নাম: ‘ব্লাক চিন্ড উহিনা (Black-chinned Yuhina)’। বৈজ্ঞানিক নাম: Yuhina nigrimenta। এ পাখি আবাসিক। বৈশ্বিক বিস্তৃতি বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, ভুটান, মিয়ানমার, কম্বোডিয়া, তিব্বত, থাইল্যান্ড ও লাওস পর্যন্ত। প্রাকৃতিক আবাসস্থল চিরহরিৎ বন। বিচরণ করে জোড়ায় জোড়ায়। অনেক সময় ছোট দলেও দেখা …

Read More »

লাল কপাল ছাতারে

ছবি: ইন্টারনেট। আবাসিক পাখি। প্রাকৃতিক আবাসস্থল আর্দ্র নিম্নভূমির বন, ঘাসবন ও বাঁশবন। ভূপৃষ্ঠ থেকে ২১০০ মিটার উঁচুতেও দেখা মেলে। খোলা বনবাদাড়ে অল্পবিস্তর নজরে পড়ে। সুশ্রী গোবেচারা টাইপ চেহারা। বিশেষ করে কপালের লাল চওড়া টান চেহারায় বৈচিত্র্যতা এনেছে। অনেকটাই সিঁদুর রাঙা মনে হয়। স্বভাবে হিংস নয়। এরা চঞ্চল ও অস্থিরমতির হলেও …

Read More »

বাদা ছাতারে

ছবি: ইন্টারনেট। আবাসিক পাখি। প্রাকৃতিক বিস্তৃতি জলাশয় এবং নদীর কাছাকাছি নলবন, ঘাসবনে। দেখতে আহামরি না হলেও মায়াবি ধাঁচের চেহারা। বাংলাদেশের পূর্বাঞ্চলে অল্পবিস্তর নজরে পড়ে। বৈশ্বিক বিস্তৃতি বাংলাদেশ, ভারত ছাড়াও দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন অঞ্চল। সামাজিক পাখি। স্বভাবে চঞ্চল। প্রজননকালীন সময়ে জোড়ায় জোড়ায় বিচরণ করলেও ছোট দল দেখা যায়। রাত্রিযাপনও করে দলবদ্ধভাবে। …

Read More »

লালঠোঁট কাস্তেছাতারে

ছবি: ইন্টারনেট। আবাসিক পাখি। যত্রতত্র দেখা যাওয়ার নজির নেই। আকর্ষণীয় চেহারা। বিশেষকরে ঠোঁটজোড়া খুব সুন্দর, দেখার মতোই বটে। মনে হতে পারে প্রবালনির্মিত কাস্তে। প্রাকৃতিক আবাসস্থল চিরহরিত্ বন-বনানী। বিশেষকরে বাঁশবন এবং চওয়া আকৃতির পাতার বনে বেশি দেখা যায়। জোড়ায় এবং ছোটদলে বিচরণ করে। হিংস্র নয়। দলের সবাই মিলেমিশে থাকে। চলাফেরায় খুব …

Read More »

সাদামাথা সাতভায়লা

‘সাদামাথা সাতভায়লা’ দেখতে অনেকটাই ‘ধলাঝুঁটি পেঙ্গা’ পাখির মতো। চেহারায় পার্থক্য নেই খুব একটা। পেঙ্গাদের খাড়া ঝুঁটি এবং চোখের নিচে কালো চওড়া টান থাকে। অন্যদিকে সাদামাথা সাতভায়লার ঝুঁটি নেই, নেই চোখের নিচের কালো টানও। এ ছাড়া বাদবাকি দেখতে একই রকম। নবীন পাখি দেখিয়েদের পক্ষে প্রজাতি শনাক্তকরণ বেশ দুরূহ। প্রজাতিটি দেশের স্থায়ী …

Read More »

পাটকিলে মাথা ছাতারে

আবাসিক পাখি। দেখতে চমৎকার। গ্রামীণ বনেবাদাড়ে অল্পবিস্তর নজরে পড়ে। সমগ্রবিশ্বে এদের অবস্থান খুব বেশি সন্তোষজনক নয়। বাংলাদেশ ছাড়াও বৈশ্বিক বিস্তৃতি ভারত, নেপাল, মিয়ানমার, চীন, লাওস, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া ও ভিয়েতনাম পর্যন্ত। এরা বেশ সামাজিক পাখি। প্রজননকালীন জোড়ায় জোড়ায় বিচরণ করলেও ছোট দল দেখা যায়। রাত্র যাপনও করে দলবদ্ধভাবে। দলের একটি …

Read More »

হলুদচোখ ছাতারে

দেশের স্থায়ী বাসিন্দা। বিচরণ করে একাকী কিংবা জোড়ায়। হাঁটে লাফিয়ে লাফিয়ে। ভালো উড়তে পারে না। স্বভাবে চঞ্চল হলেও অন্যসব ছোট প্রজাতির পাখিদের সঙ্গে মিলেমিশে বিচরণ করতে দেখা যায়। নিয়মিত গোসল করে। কণ্ঠস্বর সুমধুর। ‘টিস..টিস..টিস..’ সুরে ডাকে। ডাকাডাকির সময় খুব দ্রুত ঠোঁট ওঠানামা করে। বৈশ্বিক বিস্তৃতি বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, …

Read More »