কালচে প্রিনা

গোবেচারা টাইপ চেহারা। স্লিম গড়ন। দেহের তুলনায় লেজ খানিকটা লম্বা। স্বভাবে ভারি চঞ্চল। গাছের চিকন ডালে লাফিয়ে বেড়ায়। সারাদিন ব্যস্ত সময় কাটায় ওড়াউড়ি করে।...

লম্বাঠোঁটি দামা

ভূচর পাখি। স্বভাবে পরিযায়ী। দেশে শীতে পরিযায়ী হয়ে আসে। প্রজাতির অন্যদের মতো চেহারা তত আকর্ষণীয় নয়। বিচরণ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন অঞ্চলে। হিমালয়ের ২২০০-৩৮০০ মিটারেও...

শিয়ালেবুক নীল চটক

হিমালয়াঞ্চল থেকে পরিযায়ী হয়ে আসে। আমাদের দেশে বিচরণ করে চিরহরিৎ এবং মিশ্র মোচাকৃতি এবং পর্ণমোচী লতাগুল্মে। অন্যান্য স্থানে প্রাকৃতিক আবাসস্থল ক্রান্তীয় আর্দ্র নিন্মভূমির বনে...

পাহাড়ি টুনটুনি

পরিচিত প্রজাতির ‘টুনটুনি’ পাখির মতো যত্রতত্র এদের দেখা মেলে না। কেবলমাত্র দেখা মেলে ক্রান্তীয় আর্দ্র নিম্নভূমির বনে এবং ক্রান্তীয় আর্দ্র পার্বত্য অরণ্যে। পাহাড়ি চিরসবুজ...

কালো ধূসর বুলবুলি | Ashy Bulbul | Hemixos flavala

আবাসিক পাখি। সিলেট অঞ্চলে কমবেশি নজরে পড়ে। এরা ‘বাংলা বুলবুলি’র জ্ঞাতিভাই। শারীরিক গঠনেও বেশ মিল রয়েছে, তবে রঙ ভিন্ন। স্থানীয় প্রজাতির হলেও এদের বিচরণ...

ভূমা পেঁচা

স্থানীয় প্রজাতির পাখি। ভয়ঙ্কর দর্শন। হলুদ রঙের গোলাকার চোখ। গোলাকার শারীরিক গঠনও। দিনে গাছের বড় পাতার আড়ালে লুকিয়ে থাকে। কিছুটা লাজুক স্বভাবের বলা যায়।...

ঝুঁটিওয়ালা ঠোঁটকালো গাংচিল

পরিযায়ী পাখি। স্যান্ডউইচ আকৃতির গড়ন। দেখতে অনেকটাই ‘বড়ঠোঁটি গাংচিল’দের মতো। চাল-চলনও ওদের মতোই। প্রজাতির দেখা মেলে উপকূলীয় অঞ্চলের নদ-নদীতে। বালুবেলাতেও বিচরণ করতে দেখা যায়।...

ধূসর সারস

বিপন্ন প্রজাতির পরিযায়ী পাখি। দেশে আগমন ঘটে শীতে। হিমালয় পাড়ি দিয়ে মাঝেমধ্যে সিলেটের হাওরাঞ্চলে উপস্থিত হয়। বিচরণ করে জলাশয়ের কাছাকাছি তৃণভূমি, কৃষি ক্ষেত, চারণভূমি,...

সবুজ বাঁশপাতি

শীতের দুপুর। সবে খাবারের পর্ব শেষ হয়েছে, ঠিক তখনই ‘ট্রিউ ট্রিউ’ শব্দ কানে এল। শব্দগুলো কানে পৌঁছাতেই খানিকটা হকচকিত হলাম। ডাকটা আমার পরিচিত। এই...

হলদেগলা পেঙ্গা

স্থানীয় প্রজাতির হলেও যত্রতত্র দেখা যায় না। দেশের দক্ষিণ-পূর্ব নিম্নভূমির বন-প্রান্তরের লম্বা ঘাস, সুচাল গাছ কিংবা ঝোপ-জঙ্গলে দেখা যায়। বিশেষ করে পাতার আড়ালে লুকিয়ে...

কালোবুক দামা

পরিযায়ী প্রজাতির ভূচর পাখি। বিচরণ দক্ষিণ এশিয়া ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন অঞ্চলে। কিছুটা শালিকের মতো চেহারা। গানের গলা ভালো। মিষ্টি সুরে গান গায়। গাছের...

হলুদাভ-জলপাই বুলবুলি

স্থানীয় প্রজাতির পাখি। গ্রীষ্মমণ্ডলীয় বা ক্রান্তীয় আর্দ্র পার্বত্য অরণ্যের বাসিন্দা। দেশে পাহাড়ি এলাকায় যৎসামান্য দেখা যায়। বিশেষ করে সিলেট অঞ্চলে কিছুটা নজরে পড়ে। এরা...

কালামাথা গাঙচিল

কালামাথা গাঙচিল পরিযায়ী পাখি। সুলভ দর্শন। মায়াবী ধাঁচের পরিপাটি চেহারা। দূর দর্শনে ‘খয়রামাথা গাঙচিল’ মনে হতে পারে। এরা শীতে পরিযায়ী হয়ে আসে দক্ষিণ রাশিয়া...

সাদা মানিকজোড় | White Stork | Ciconia ciconia

অতি বিরল প্রজাতির পরিযায়ী পাখি ‘সাদা মানিকজোড়’। বাংলাদেশে এরা আসে ভরা শীতে। তবে সংখ্যায় বেশি নয়, বড়জোর দু-চার জোড়া দেখা যায়। কালেভদ্রে এদের দেখা...

সাদাঘাড় কালো দামা

‘সাদাঘাড় কালো দামা’ ভূচর পাখি। গো-বেচারা টাইপ চেহারা। গায়ক পাখি। গানের গলাও ভালো। গাছের উঁচু ডালে বসে খুব ভোরে এবং গোধূলিলগ্নে গান গায়। স্বভাবে...

পাটকিলে মাথা ছাতারে

আবাসিক পাখি। দেখতে চমৎকার। গ্রামীণ বনেবাদাড়ে অল্পবিস্তর নজরে পড়ে। সমগ্রবিশ্বে এদের অবস্থান খুব বেশি সন্তোষজনক নয়। বাংলাদেশ ছাড়াও বৈশ্বিক বিস্তৃতি ভারত, নেপাল, মিয়ানমার, চীন,...

হীরামন

স্থানীয় প্রজাতির পাখি। অসুলভ থেকে বিরল। মাঝেমধ্যে দেখা মিলে মিশ্র চিরসবুজ বনে। বিশেষ করে সিলেট থেকে টেকনাফ পর্যন্ত যেসব বনাঞ্চল রয়েছে, ওই সব বনাঞ্চলের...

কালাপেট পানচিল

আবাসিক পাখি। সুচালো স্লিম আকৃতির গড়ন। দেখতে মন্দ নয়। উপকূলীয় অঞ্চলের নদ-নদীতে এদের দেখা মিললেও মূলত এরা সামুদ্রিক পাখি। হ্রদ কিংবা নদ-নদীতে বিচরণের পাশাপাশি...

লালগলা ডুবুরি

পরিযায়ী পাখি। শীতে দেখা মেলে। বিচরণ করে স্বাদুজলে। বিচরণ করে জোড়ায় জোড়ায়। মাঝেমধ্যে ছোট দলেও নজরে পড়ে। হ্রদ কিংবা বড় জলাশয়ে দেখা মেলে। সাঁতারে...

পাতি কাক

দেশের স্থায়ী বাসিন্দা। বিচরণ করে যত্রতত্র। শুধু তাই নয়, মানুষের সান্নিধ্য পেতে এরা বাড়ির আশপাশে বিচরণ করে। পচাগলা খেয়ে মানুষের যথেষ্ট উপকারও করে। সামাজিক...

তামাপিঠ লাটোরা

অনিয়মিত পরিযায়ী পাখি। বাংলাদেশ ছাড়া বৈশ্বিক বিস্তৃতি ভারত, নেপাল, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, তুর্কমেনিস্তান, ইরান ও তুরস্ক পর্যন্ত। বিচরণ করে আবাদি জমি, বনপ্রান্তরের খোলা...

হলুদচোখ ছাতারে

দেশের স্থায়ী বাসিন্দা। বিচরণ করে একাকী কিংবা জোড়ায়। হাঁটে লাফিয়ে লাফিয়ে। ভালো উড়তে পারে না। স্বভাবে চঞ্চল হলেও অন্যসব ছোট প্রজাতির পাখিদের সঙ্গে মিলেমিশে...

ধলালেজ চুনিকণ্ঠী

বাংলা নাম ‘ধলালেজ চুনিকণ্ঠী’। ইংরেজি নাম হোয়াইট টেইলড রুবি-থ্রোট (White-tailed Ruby-throat)। বৈজ্ঞানিক নাম Luscinia pectoralis। এরা ‘হিমালয়ের লালগলা’ নামেও পরিচিত। এ পাখি দেখতে ‘সাইবেরীয় চুনিকণ্ঠী’র...

পাতারি ফুটকি

বিরল দর্শন ভবঘুরে পাখি। দেশে খুব বেশি দেখা যাওয়ার নজির নেই। দুই-তিনবার দেখা যাওয়ার রেকর্ড রয়েছে। চেহারা চড়–ই আকৃতির হলেও সামান্য লম্বা ধাঁচের। আকারে...

লালঘাড় পেঙ্গা

‘লালঘাড় পেঙ্গা’ পাখি স্থানীয় প্রজাতির। তবে যত্রতত্র দেখা যায় না। ভিতু প্রকৃতির। এদের আবাসস্থল ক্রান্তীয় আর্দ্র নিম্ন ভূমির বন এবং ক্রান্তীয় আর্দ্র পার্বত্য অরণ্যে। এ...

সবুজ-ডোরা কাঠঠোকরা

বিরল আবাসিক পাখি। দেখা মেলে প্যারাবনে, চিরসবুজ বন, এবং উপকূলীয় এলাকার ঝোপ-জঙ্গলে। দেশে দেখা মেলে সুন্দরবনাঞ্চলে। বিচরণ করে একা কিংবা জোড়ায় জোড়ায়। খাদ্যের সন্ধানে...